| রাত ২:২১ - বুধবার - ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১১ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ঈশ্বরগঞ্জ আ’লীগের দু’গ্রুপের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ২৬০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

ফারুক ইফতেখার সুমন, ঈশ্বরগঞ্জ প্রতিনিধি-১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫, সোমবার, 
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ উভয় পক্ষের অজ্ঞাত ২৬০ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। রোববার রাতে মামলাটি দায়ের করেন থানার এসআই মাসুদ জামালী। ঈশ্বরগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অনার্সের তিনটি বিভাগের প্রভাষক নিয়োগকে কেন্দ্র করে আ’লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কলেজের শিড়্গক নিয়োগকে কেন্দ্র করে সাবেক এমপি আবদুছ ছাত্তার ও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বুলবুল সমর্থকরা দেশিয় অস্ত্র নিয়ে পথরোধ করে খুনের উদ্দেশ্যে মুখোমুখি হওয়া, সরকারি কাজে বাধা প্রধান ও পুলিশের তিন সদস্য লাল মিয়া, সমেদ, হান্নানকে আহত করায় একটি মামলা দয়ের করা হয়েছে। মামলায় ্‌আ’লীগের উভয় পড়্গের অজ্ঞাত ২৬০ নেতাকর্মীকে আসামী করা হয়।
ঈশ্বরগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বাংলা, হিসাব বিজ্ঞান ও সমাজকর্ম বিভাগের ১৫ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার চেষ্টা করা হলে গত ২২ আগস্ট কলেজের সভাপতি ও সাবেক এমপি আবদুছ ছাত্তারের বিরম্নদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ তুলে ছাত্রলীগ ও কলেজ পরিচালনা কমিটির সদস্য আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বুলবুলের হস্তক্ষেপে নিয়োগ পরীক্ষব স্থগিত করা হয়। গত রোববার ফের নিয়োগ পরীক্ষার প্রস’তি নেওয়া হলে রফিকুল ইসলাম বুলবুলের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের একাংশ ও সাবেক এমপি আবদুছ ছাত্তারের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। দুই গ্রম্নপ হাতাহাতি ও দেশিয় অস্ত্র নিয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় জড়িয়ে পড়লে পুলিশ লাঠিচার্জ ও ৫ রাউ- গুলি করে পরিসি’তি শান্ত করে।
ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি মো. বোরহান উদ্দিন বলেন, কলেজের নিয়োগকে কেন্দ্র করে আ’লীগের দুই গ্রম্নপ দেশিয় অস্ত্র নিয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় জড়িয়ে পড়ে। ওই ঘটনায় উভয় পক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:১১ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৫