| দুপুর ১:৩৯ - মঙ্গলবার - ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৩০শে সফর, ১৪৪৪ হিজরি

আন্তঃস্কুল হ্যান্ডবলে হারায় শিক্ষিকার লংকা কান্ডঃ বাজিতপুরে ১১জন ছাত্রী আহত

বাজিতপুর সংবাদদাতা,২৪ আগস্ট ২০১৫, সোমবার:  কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলা আন্তঃস্কুল হ্যান্ডবল ফাইনাল খেলায় নাজিরুল ইসলাম কলেজিয়েট স্কুল বিজয়ী হয় সোমবার। বিজিত বেগম রহিমা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শারিরিক শিক্ষিকা সুফিয়া আক্তার আজ সোমবার বিকাল ৩টার দিকে নাজিরুল ইসলাম কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্রীরা স্কুল থেকে বাড়িতে যাওয়ার পথে এডভোকেট আনোয়ারুল হক একদিলের বাসার সামনে রাস্তায় ওই বিদ্যালয়ের ১০-১১ জন ছাত্রীকে বেধড়কভাবে পিটিয়ে জখম করেছে বলে স্কুল সূত্রে জানাগেছে। এদের মধ্যে গু্রুতর আহতরা হলেন, নাজিরুল কলেজিয়েট স্কুলের ৬ষ্ট শ্রেণীর ছাত্রী সাথি আক্তার (১২), সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী আশামণি (১৩), সাবিকুন্নাহার (১২) তামান্না আক্তার (১২) কে বাজিতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকী ৭জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ খবর পাওয়ার পর বাজিতপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ ইসমাইল, সুরবালা সৌদামিনি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল জব্বার, প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ আলী, প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাইয়ুম, আহত ছাত্রীদের কে দেখতে হাসপাতালে যান। আহত ছাত্রী শুক্রিয়া, অর্ণিতা, সাথি, তৃষা, নাফিজা আক্তার গতকাল বিকালে হাসপাতালে জানান, আন্তঃস্কুল হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতা খেলা শেষে বাড়িতে যাওয়ার পথে ওই শিক্ষিকা ও তাদের বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা অর্তকিত ভাবে বর্বরোচিত ভাবে হামলা চালিয়ে বেধড়ক ভাবে পেটায়। বেগম রহিমা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আশরাফুল হক জানান, নাজি্রুল ইসলাম কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্রীরা প্রথমে তার স্কুলের ছাত্রীদের উপর হামলা চালায়। পরে নিজেদের আত্নরক্ষার্থে শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীরা তাদের উপর পাল্টা হামলা চালায় বলে উল্লেখ করেন। বাজিতপুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা এ জেড এম সারজিল হাসান জানান, এই ঘটনার নিরসন কল্পে ২ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অভিভাবকদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসবেন সন্ধ্যার দিকে।

 

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:৫৮ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২৪, ২০১৫