| বিকাল ৪:৩৭ - বৃহস্পতিবার - ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ২রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

গফরগাঁওয়ের চরআলগী বেড়িবাঁধ নির্মান প্রকল্প বাস্তবায়নে অনিশ্চয়তা

আজহারুল হক,গফরগাঁও,২৩ জুলাই,২০‌১৫ বৃহস্পতিবার:
২০১১ সালের ৩১ মার্চ গফরগাঁও সরকারি কলেজ মাঠে উপজেলা অনুষ্ঠিত জনসভায় এলাকাবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাঙন প্রতিরোধে চরআলগী ইউনিয়নের চারিদেকে বেড়িবাঁধ এবং পৌরশহর রক্ষা বাঁধ নির্মানের প্রতিশ্রুতি দেন।
পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রম্নতি বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের নির্দেশনার আলোকে ২০১১ সালের নভেম্বর মাসে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ময়মনসিংহ অফিস ভাঙন রোধে চরআলগী ইউনিয়নের চারিদিকে ২৭ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ, ৩ কিলোমিটার সিসি ব্লক, ৩টি সুইচ গেইট নির্মানের ডিপিপি (ডেভেল্যাপমেন্ট প্রোগ্রাম প্রোফর্মা) পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ে জমা দেয়। ২০১৪ সালের জুন মাসে প্রকল্পটির সমাপ্তির সম্ভাব্য সময় দেওয়া হয়। প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয় ৬০ কোটি টাকা।
কিন্তু প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদ পরিবেষ্টিত চরআলগী ইউনিয়নের চারিদিকে বেড়িবাঁধ নির্মাণ প্রকল্পের বাসত্মবায়ন নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের নির্দেশে প্রনীত এ প্রকল্পের (ডিপিপি) ফাইল পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে গায়েব হওয়াসহ সংশিস্নষ্টদের উদাসিনতা ও অবহেলার কারনে মেয়াদ শেষেও প্রকল্পটি আলোর মুখ দেখেনি। প্রতি বছরের মতন চলতি বর্ষা মৌসুমে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙ্গনে চরআলগী ইউনিয়নের অন্তত ৬৫ হাজার মানুষ আজ দিশেহারা।
প্রতি বছর ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনে গফরগাঁও পৌর এলাকা ও চরআলগী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। গত কয়েক বছরের অব্যাহত ভাঙনে চরআলগী ইউনিয়নের সহস্রাধিক পরিবার তাদের সবকিছু হারিয়ে আজ আশ্রয়হীন অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছে।
জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অনুমোদনের জন্য পানি সম্পদ মন্ত্রনালয় ‘চরআলগী ইউনিয়নের চারিদিকে বেড়িবাঁধ নির্মাণ’ প্রকল্পটি (ডিপিপি) পরিকল্পনা কমিশনে পাঠালে ২০১২সালের ২৬ এপ্রিল পরিকল্পনা কমিশন প্রকল্পটি ফেরত দেয়। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের নির্দেশনা অনুসারে গত বছরের ২১ জুলাই পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে সভায় ‘চরআলগী ইউনিয়নের চারিদিকে বেড়িবাঁধ নির্মাণ’ প্রকল্পটি পূনরায় অনুমোদনের ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডকে এ ব্যাপারে মন্ত্রনালয়ের পক্ষ থেকে চিঠি দেওয়া হয়।  ময়মনসিংহ পানি উন্নয়ন বোর্ড এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নে জন্য গত বছরের ১৭ আগষ্ট নতুন ফাইল খোলে। এ দিকে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রম্নতির ৪ বছর পরও চরআলগী বেড়িবাঁধের কাজ শু্রু না হওয়ায় এলাকাবাসীর মাঝে দেখা দিয়েছে হতাশা।
এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ড ময়মনসিংহের নির্বাহী প্রকৌশলী খুশীমোহন সরকার বলেন, ৮৬ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয় ধরে ‘চরআলগী ইউনিয়নের চারিদিকে বেড়িবাঁধ নির্মান প্রকল্পে’র নতুন ডিপিপি তৈরী করা হয়েছে।
স্থানীয় এমপি ফাহ্‌মি গোলন্দাজ বাবেল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রম্নতি চরআলগীর বেড়িবাঁধ প্রকল্পটি বাস্তবায়নে জন্য পানিসম্পদ মন্ত্রীসহ সংশিস্নষ্টদের অনুরোধ করা হয়েছে। জনগুরম্নত্বপূর্ণ এ প্রকল্প বাস্তবায়নে  জন্য জরম্নরী ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:০৮ অপরাহ্ণ | জুলাই ২৪, ২০১৫