| ভোর ৫:৪২ - শুক্রবার - ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৩রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

গফরগাঁওয়ে ধর্ষণের ফলে দশম শ্রেণীর ছাত্রী অন্ত:স্বত্বা : থানায় মামলা

আজহারুল হক, গফরগাঁও, ২৩ জুলাই, ২০‌১৫ বৃহস্পতিবার, 
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে দশম শ্রেণীর এক ছাত্রী ও তার মাকে হত্যার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের পর সে অন-সত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থী বাদী হয়ে উপজেলার পাগলা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার দত্তেরবাজার ইউনিয়নের বারইগাঁও গ্রামে। মামলা দায়েরের পর থেকে প্রভাবশালী একটি মহল ধর্ষককে বাচাতে ধর্ষিতা ও তার মাকে আপোষ-মীমাংসার জন্য চাপ প্রয়োগ করে আসছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এ ব্যাপারে ময়মনসিংহ জজ কোর্টের আইনজীবি সাইফুস সালেহীন জানান, ধর্ষণের মতো জঘন্যতম অপরাধ বিচার সালিশ করে বা টাকা দিয়ে মীমাংসা করা যায়না। সাক্ষ্য প্রমাণ সাপেক্ষে আদালত ন্যায় বিচার নিশ্চিত করবেন।
ধর্ষিতার পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দত্তেরবাজার ইউনিয়নের বারইগাঁও গ্রামের মৃত আজিজুল ক্বারীর মেয়ে ও স’ানীয় উসমানগনী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী (সুইটি আক্তার (১৫)) গত ৯জানুয়ারী রাত ১০টার দিকে পড়ালেখা শেষে প্রকৃতির ডাকে ঘর থেকে বের হয়। এ সময় প্রতিবেশী মৃত মহর আলীর ছেলে লম্পট কাজল মিয়া(৫০) সুইটির মুখ চেপে গলায় ছুরি ধরে পাশের একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে জোর করে ধর্ষণ করে এবং এ ঘটনা কাউকে জানালে তাকে ও তার মাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এতে সুইট ঘটনাটি কাউকে জানায়নি। সমপ্রতি সুইটির শারীরিক পরিবর্তন দেখে পরিবারের লোকজনের সন্দেহ হলে আল্টাসনোগ্রাম করার পর সুইটির অনত্মঃস্বত্বা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হয়। পড়ে পরিবারের লোকজনের চাপের মুখে সুইটি প্রতিবেশী কাজল মিয়ার দ্বারা ধর্ষিত হওয়ার বিষয়টি সকলকে জানায়। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় গত মঙ্গলবার রাতে সুইটি বাদী হয়ে কাজল মিয়াকে আসামী করে পাগলা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পর ধর্ষকের পক্ষ নিয়ে একটি প্রভাবশালী মহল মামলা তুলে নিয়ে ধর্ষকের পরিবারের সাথে আপোষ-মীমাংসার জন্য চাপ সৃষ্টি করে আসছে। এ অবস’ায় ধর্ষিতা ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছে।
সুইটির মা রিনা খাতুন বলেন, লম্পট কাজল আমার মেয়ের জীবনটা নষ্ট করছে। এখন বাবা ছাড়া এতিম এ মেয়েটিকে কে বিয়ে করবে।
পাগলা থানার ওসি বদরুল আলম খান বলেন, গতকাল বুধবার মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ধর্ষিতাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষক কাজলকে ধরতে অভিযান চলছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৩৪ অপরাহ্ণ | জুলাই ২৩, ২০১৫