| সকাল ৬:০০ - শুক্রবার - ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৩রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

সাড়ে ৬ মাসে ত্রিশালের ধলা আশ্রয় কেন্দ্র থেকে ২৮ শিশুর পলায়ান , সর্বশেষ ১২ কিশোর

ত্রিশাল অফিস,  ১৫ জুলাই ২০১৫, বুধবার :  
ময়মনসিংহের ত্রিশালের ধলা সরকারী আশ্রয় কেন্দ্র থেকে বিভিন্ন অপরাধে দন্ডপ্রাপ্ত ১২ পথ শিশু আশ্রয় কেন্দ্র থেকে পালিয়েছে। পর্যাপ্ত পরিমান নিরাপত্তাকর্মী থাকা সত্ত্বেও তাদের চোঁখ ফাকি দিয়ে সোমবার রাতের কোন এক সময় তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
জানাযায়, গত সোমবার রাতের কোন এক সময় উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়নের ধলা সরকারী আশ্রয় কেন্দ্রর দন্ডিত ১২ জন শিশু রান্না ঘরের টিনের চাল কেটে পালিয়ে গেছে। এ ঘটনা প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই উর্দ্ধতন কর্তৃপড়্গ ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেছেন। পালিয়ে যাওয়া শিশুদের মধ্যে রয়েছে ১। মমিন, পিতা-শফিকুল ইসলাম, ২। জাবেদ পিতা- আমির উদ্দিন, ৩। আসিফ রানা, পিতা-নুর ইসলাম, ৪। তুহিন মিয়া, পিতা-আফজাল হোসেন, মনির ওরফে সিফাত, পিতা- সালাম, জাকির, পিতা- শাহীন ওরফে হানিফ, রায়হান পিতা-জহির হোসেন, রাসেল, পিতা- শাহজাহান, পাবেল, পিতা-বরকত, ইয়াছিন ওরফে আ: করিম, হৃদয় পিতা- কুদ্দুস। আশ্রয় কেন্দ্রে ৫ জন আনসার ও ৩ জন প্রহরী থাকার পরও ভবঘুর থেকে ১২ শিশু পলায়নের ঘটনায় ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। এর আগে ২০১৫ সালের ২১ জানুয়ারী ১৬ জন শিশু পালিয়ে যায় এই আশ্রয় কেন্দ্র থেকে।
এ ঘটনার পর মঙ্গলবার ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেন এডিসি (সার্বিক) আহাদ আলী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান শাহীন, জেলা পুলিশ সুপার মঈনুল হক, ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরম্নজ্জামান।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান শাহীন জানান, আমরা ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেছি। এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদনত্ম কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরম্নজ্জামান জানান, এ ঘটনায় ত্রিশাল থানায় একটি সাধারন ডাইরী করা হয়েছে। ধলা সরকারী আশ্রয় কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক ও উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আলী হোসেন বাদী হয়ে এ ডায়েরী করেন।
ধলা সরকারী আশ্রয় কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক ও উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আলী হোসেনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্ঠা করলেও তিনি মোঠফোন রিসিভ করেননি।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১১:০১ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৫, ২০১৫