| বিকাল ৪:১৯ - শনিবার - ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

নতুন ২৭টি স্থানকে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে ইউনেস্কো

অনলাইন ডেস্ক,| ৮ জুলাই ২০১৫, বুধবার:

নতুন ২৭টি স্থানকে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক অঙ্গসংস্থা ইউনেস্কো। এর মধ্যে রয়েছে জন দ্য ব্যাপটিস্টের হাতে যীশু খ্রীষ্টের দীক্ষিত হবার স্থান। রয়েছে ফরাসি শ্যা¤েপইন ও বুরগুন্ডি (মদবিশেষ) উৎপত্তির স্থান। এছাড়াও রয়েছে সৌদি আরবের পর্বতে অঙ্কিত বিভিন্ন প্রাচীন চিত্রকলা। শুক্রবার প্রাকৃতিক, সাংস্কৃতিক কিংবা উভয়ের সম্মিলন ঘটানো ২৭টি স্থানকে নতুন বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানসমূহের অংশ হিসেবে ঘোষণা করে ইউনেস্কো। এ স্থানগুলোকে ‘অসাধারণ বৈশ্বিক মূল্যে’র অধিকারী বলে ভাবা হয়। এ খবর দিয়েছে সিএনএন।
বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হতে হলে যেকোনো স্থানকে ‘মানুষের সৃজনশীল প্রতিভার সর্বোতকৃষ্ট নিদর্শনের প্রতিনিধিত্ব’, ‘ব্যাতিক্রমী প্রাকৃতিক সৌন্দর্য’ ধারন করা অথবা ঐতিহ্যবাহী মানব স্থাপনার অসাধারণ উদাহরন হতে হবে। এরকম প্রায় ১০টি মানদ- পূরন করতে হয় যেকোনো স্থানকে। নতুন ২৭ টি স্থান সহ এ নিয়ে বিশ্বব্যাপী মোট ১০৩১টি প্রাকৃতিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যবাহী স্থান বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে স্বীকৃত হয়েছে। ১৯৭৮ সাল থেকে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ লিস্টে বিভিন্ন স্থান ও স্থাপনাকে অন্তর্ভুক্ত করে চলেছে ইউনেস্কো। ঐতিহ্যবাহী স্থানের পাশাপাশি হুমকির মুখে থাকা ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলোরও একটি তালিকা করেছে ইউনেস্কো। সেখানে নতুন করে ৩টি স্থানকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ইয়েমেনের সানা’র ওল্ড সিটি ও শিবামের ওল্ড ওয়াল্ড সিটি এবং ইরাকের হাত্রা শহর। নতুন অন্তর্ভুক্ত ২৭টি স্থানের নাম হলো: চীনের তুসি, ডেনমার্কের ক্রিস্টিয়ান্সফেল্ড ও নর্থজিল্যান্ডের পার ফোর্স, ফ্রান্সের শ্যা¤েপন ও বুরগুন্ডির উদ্ভভস্থল, জার্মানির ¯েপইকেরস্টাড ও কন্টোর্হাউস জেলা, ইরানের মায়মান্ড ও সুসা, ইসরাইলের ব্যাট শে’আরিমের নেক্রোপোলিস, ইতালির আরব-নরম্যান পালেরমো এবং সেফালু ও মনরেয়ালে চার্চ, জামাইক্যার ব্লু অ্যান্ড জন ক্রো পর্বত, জাপানের মেইজি শিল্প বিপ্লবের স্থানসমূহ, জর্দানের ‘বেথানি বিয়ন্ডস দ্য জর্দানের’ ব্যাপটিজম স্থাপনা, কোরিয়ার বায়েকজে ঐতিহাসিক স্থাপনা, মেক্সিকোর পাদ্রে টেমব্লেক নালা, মঙ্গোলিয়ার গ্রেট বুরখান খালদুন পর্বত ও পাশের পবিত্র স্থাপনাসমূহ, নরওয়ের নটোডেন শিল্প ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা, সৌদি আরবের হেইল অঞ্চলের অঙ্কনবাহী পর্বত, সিঙ্গাপুরের বোটানিক্যাল গার্ডেন, দক্ষিন আফ্রিকার কেপ ফ্লোরাল সংরক্ষিত অঞ্চল, ¯েপনের সান্টিয়াগোর সড়ক, তুরস্কের দিয়ারবাকির দুর্গ, হেভসেল গার্ডেন ও এফেসাস, যুক্তরাজ্য ও উত্তর আয়ারল্যান্ডের ফোর্থ ব্রিজ, যুক্তরাষ্ট্রের সান অ্যান্টোনিও মিশন, উরুগুয়ের ফ্রে বেনতোস, ভিয়েতনামের কে বাং ন্যাশনাল পার্ক।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১:৪৯ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৮, ২০১৫