| সকাল ৭:২০ - বৃহস্পতিবার - ১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ৩রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৯শে মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

খাগডহরে চাঁদাবাজদের হামলায় মহিলাসহ আহত ৪ঃ ৫০ হাজার টাকা ছিনতাই ঃ আতংকে পরিবার

স্টাফ রিপোর্টারঃ  ২৬ জুন ২০১৫, শুক্রবার,
চাঁদা দিতে রাজী না হওয়ায় চাঁদাবাজরা হামলা চালিয়ে মহিলাসহ ৩জনকে গুরুতর আহত করে ৫০ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়ে গেছে সন্ত্রাসীরা। গুরুতর আহতদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২০ জুন বিকালে সদর উপজেলার খাগডহর ইউনিয়নে চরজেলখানার বাসিন্দা নিরীহ ব্যবসায়ী মোঃ শহিদুল ইসলামের বাড়িতে।
চরজেলখানার বাসিন্দা নিরীহ কাঁচামাল ব্যবসায়ী মোঃ শহিদুল ইসলাম জানান, তার নিকট দীর্ঘদিন ধরে একই এলাকার কথিত চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী মজি, আলামিন, কাউসার ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। কিন্তু ব্যবসায়ী শহিদুল চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তাকে বিভিন্ন সময়ে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে আসছিল। প্রায়ই শহিদুল খাগডহর গোদারাঘাটে কাঁচামাল কিনতে গেলে সন্ত্রাসীরা বাধা প্রদান করে এবং হুমকি দিয়ে বলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৫০ হাজার টাকা না দিলে তাকে খুন করে ফেলবে।
গত ২০ জুন শনিবার বিকালে উল্লেখিত মজি, আলামিন, কাউসার এর দাবীকৃত চাঁদার টাকা কথামত দিতে না পারায় মারাত্মক অস্ত্রাদি নিয়ে শহিদুলের বসত বাড়ীতে যায়। চাঁদাবাজরা তাকে না পেয়ে তার বসত ঘরে ঢুকে ব্যবসায়ী শহিদুলের কাজের ছেলে আঃ খালেক, তাঁর মা মোঃ আমেনা বেগম, স্ত্রী মোছাঃ ময়নার নিকট চাঁদা দাবী করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় খালেককে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মাটিতে ফেলে দেয় তার কাছে থাকা ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে যায় এবং এসময় চাঁদাবাজরা ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলামের মা ও স্ত্রীর মাথায় উপর্যুপুরি আঘাত করে খুন করার চেষ্টা করে। এঘটনার পরদিন ২১ জুন এনিয়ে কথাকাটির এক পর্যায়ে শহিদুল ইসলামের ওপর হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে উল্লেখিত ব্যক্তিরা। বর্তমানে ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম ও তার মা স্ত্রী ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এমতাবস্থায় নিরীহ ব্যবসায়ীর পরিবার আতঙ্কে দিনাতিপাত করছে এবং তাকে মামলা না করার জন্য হুমকি প্রদান করছে। ফলে সন্ত্রাসীদের হুমকির মুখে পরিবারটি আতংকের মাঝে দিন কাটাচ্ছে। পরিবারটি মামলা করতে সাহস পাচ্ছে না। #

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:২২ অপরাহ্ণ | জুন ২৬, ২০১৫