| সকাল ৭:৫৩ - মঙ্গলবার - ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

শততম ম্যাচে মেসির সতর্কতা

অনলাইন ডেস্ক,২২ জুন ২০১৫, সোমবার:

আসরের প্রথম ম্যাচেও আর্জেন্টিনার এমন ঢিলেঢালা ফুটবল দেখা গিয়েছিল। প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচের প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে পরে তারা দুই গোল হজমে দেয় খেসারত। শনিবার জ্যামাইকার বিপক্ষে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধেও দর্শকরা দেখলেন আর্জেন্টিনার অলস-নির্জীব ফুটবল। তবে এ যাত্রায় বেঁচে গেল কোপা আমেরিকার ১৪ বারের চ্যাম্পিয়নরা। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে ক্যারিয়ারের ১০০তম ম্যাচ খেলে নিলেন লিওনেল মেসি। আর এ ফুটবল জাদুকরের মাইলফলকের ম্যাচে জয় নিয়ে কোপা আমেরিকার নকআউট পর্বে পা রাখলো তার দল আর্জেন্টিনা। শনিবার চিলির ভিনিয়া দেল মারে ‘বি’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে জ্যামাইকার বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পায় মেসি অ্যান্ড কোং। তবে ম্যাচ শেষে নিজেদের খেলায় পরিষ্কার বিরক্তি ও সতীর্থদের জন্য সতর্কতা প্রকাশ করেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক লিওনেল মেসি। এফসি বার্সেলোনার হয়ে সদ্য মওসুম ট্রেবল শিরোপাজয়ী তারকা লিওনেল মেসি বলেন, দ্বিতীয়ার্ধে আমরা খুবই মন্থর ফুটবল খেলছিলাম। প্যারাগুয়ের বিপক্ষেও একই রকম মন্থর ফুটবল খেলেছিলাম আমরা।  মাঠে বল পায়ে আমরা জায়গা বের করতে পারছিলাম না। মাঠে আমাদের নড়াচড়াটাও ছিল মন্থর। আমি এর কারণ জানি না। তবে নকআউট ম্যাচে আমাদের এমন করলে চলবে না। শনিবার জ্যামাইকার বিপক্ষে ম্যাচের ১১তম মিনিটে অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়ার পাসে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন গঞ্জালো হিগুয়েন। আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে ৫০ ম্যাচে এটি হিগুয়েনের ২৪তম গোল। তবে আর্জেন্টিনার হয়ে ৯ মাসে এটি প্রথম গোল নাপোলির এ স্ট্রাইকারের। এ জয়ে গ্রুপের শীর্ষস্থানের মর্যাদা পাচ্ছে আর্জেন্টিনাই। তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রতে আর্জেন্টিনার সংগ্রহ ৭ পয়েন্ট। এর আগে প্যারাগুয়ের সঙ্গে ২-২ গোলের ড্র ও উরুগুয়ের বিপক্ষে একমাত্র গোলে জয় পায় দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। শনিবার  গ্রুপের অন্য ম্যাচে গত কোপা আমেরিকার দুই ফাইনালিস্ট উরুগুয়ে-প্যারাগুয়ে খেলা শেষ করে ১-১ গোলের ড্র নিয়ে। যথাক্রমে ৫ ও ৪ পয়েন্ট নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে প্যারাগুয়ে ও উরুগুয়ে।
এস্তাদিও সাওসালিতো মাঠে শনিবার আর্জেন্টিনা কোচ জেরার্ডো মার্টিনো একাদশ সাজান গত দুই ম্যাচের গোলদাতা সার্জিও আগুয়েরোকে বেঞ্চে রেখে। এদিন ডিফেন্ডার ওতামেন্দির জায়গায় সুযোগ পান ম্যানচেস্টার সিটি তারকা মার্টিন দেমিচেলিস। ম্যাচে ৭৩% বল দখল ও ১৯ বার প্রতিপক্ষ গোলবারে শট নেন আর্জেন্টিনা তারকারা। তবে এর মাত্র ৫টি ছিল অনটার্গেটে। ১০ বছর আগে আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে মাঠে পা পড়ে লিওনেল মেসির। ২০০৫ সালের ১৫ আগস্ট হাঙ্গেরির বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচের ৬৩তম মিনিটে বদলি খেলতে নামেন ১৮ বছরের লিওনেল মেসি। তবে মাঠে মাত্র দুই মিনিটের উপস্থিতিতেই লাল কার্ড দেখেন এ খুদে জাদুকর। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়কে কনুইয়ের গুঁতো মেরে মাঠ থেকে বহিষ্কৃত হয়ে সেদিন ড্রেসিংরুমে কেঁদে কেঁদে চোখ ফোলে লিওনেল মেসির। তবে পরের গল্পটা তার রূপকথার মতো। আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে ১০০ ম্যাচে মেসি পেয়েছেন ৪৬ গোল। আর্জেন্টিনা দলে মেসির চেয়ে বেশি গোল রয়েছে কেবল গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতার। সাবেক এ আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার ক্যারিয়ারে পেয়েছেন ৭৮ ম্যাচে ৫৬ গোল। সদ্য মওসুম এফসি বার্সেলোনার জার্সি গায়ে ৫৭ ম্যাচে ৫৮ গোলের নায়ক লিওনেল মেসি বলেন, এবারের কোপা আমেরিকায় কেউই সহজ প্রতিপক্ষ নয়। চিলি এ মুহূর্তে দারুণ ফুটবল খেলছে। আর কলম্বিয়া তাদের শক্তি দেখিয়েছে ব্রাজিলকে হারিয়ে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:৫৭ অপরাহ্ণ | জুন ২২, ২০১৫