| রাত ১১:১৮ - বুধবার - ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ - ১৭ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

কটিয়াদী পাটের মোকামে উঠেছে নতুন পাট, নেই ক্রেতা

কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) সংবাদদাতা, ১৯ জুন ২০১৫, শুক্রবার,
কিশোরগঞ্জ জেলার সর্ব বৃহৎ পাটের মোকাম কটিয়াদী বাজারে নতুন পাট উঠতে শুরম্ন করেছে। গত বৃহস্পতিবার ১৮ জুন কটিয়াদী ও পাশ্ববর্তী সরারচর, মঠখোলা, করগাঁও বাজারে নতুন পাট উঠতে দেখা যায়। হাট বাজার ঘুরে দেখা যায় বট পাট (কেনাব) প্রতি মন (৪১ কেজি) ১ হাজার ৫’শ থেকে ৭’শ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানাযায়, তোষা ৫’শ ৬৭ দেশী ২’শ ৮৬ কেনাব ৬’শ ৯০ ও মেসতা ৭৫ হেক্টর জমিতে পাট চাষ করা হয়। এ বছর গত মৌসুম থেকে পাটের ফলন প্রায় অর্ধেক। অতি বৃষ্টি ও উপজেলা পাট অধিদপ্তর কর্তৃক নিন্ম মানের বীজ বিতরনের ফলে ফলনের বিপর্যয় দেখা দিয়েছে বলে অভিযোগ করে কৃষকরা। এদিকে বাজারে নতুন পাট আমদানী হলেও কোন ক্রেতা নেই। এখনও সরকারি বেসরকারি মিল গুলো পাট কিনছে না। কটিয়াদী বাজারের পাট ব্যবসায়ী শিবু প্রমাদ বণিক ও অনাথ বন্ধু সাহা জানায়, মিল গুলোতে পাটের চাহিদা থাকলেও নগদ অর্থে পাট কিনছেনা। বাকীতে পাট বিক্রি করতে হয়। টাকার জন্য বছরের পর বছরঘুরতে হয়। কটিয়াদী বাজারে বিজেএমসির হাকিম জুট মিলের ক্রয় কেন্দ্রে প্রায় ২৯ লাখ টাকা এবং মঠখোলা বাজারে ইউএমসি জুট মিলের প্রায় ১৮ লাখ টাকা বকেয়া পড়েছে। বাজারে ব্যাবসায়ীরাই এখন পাটের ক্রেতা।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৫১ অপরাহ্ণ | জুন ১৯, ২০১৫