| সকাল ১১:২৯ - বুধবার - ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১১ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

নেইমারের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা !

অনলাইন ডেস্ক,১৮ জুন ২০১৫, বৃহস্পতিবার:

এবার নেইমারের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা করলো ব্রাজিলের একটি বিনিয়োগ কোম্পানি। ব্রাজিলের এ স্ট্রাইকারের দল বদলের অর্থের পরিমাণ নিয়ে ঝামেলা কম হয় নি। কিন্তু এতদিন সেটা নিয়ে তার সাবেক ক্লাব সান্তোস ও বর্তমান ক্লাব বার্সেলোনার বিরুদ্ধে কথা ছিল। প্রতারণার অভিযোগে বার্সেলোনার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগও করা হয়েছে। কিন্তু এই প্রথমবারের মত নেইমারের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনা হলো। ২০১৩ সালে বাল্যকালের ক্লাব সান্তোস থেকে নেইমারকে কিনে নেয় বার্সেলোনা। স্প্যানিশ এ ক্লাবটি তখন দাবি করে, তারা নেইমারকে ৫৭.১ মিলিয়ন পাউন্ডে কিনেছে। কিন্তু শুরু থেকেই তথ্য লুকানোর অভিযোগ ছিল তাদের বিরুদ্ধে। নেইমারকে আরও অনেক অর্থ দিয়েছে কিন্তু কর ফাঁকি দেয়ার জন্য এমনটা করেছে বলে স্প্যানিশ আদালতে জানানো হয়। কোনো কোনো সূত্রের তদন্তে জানা যায় নেইমারকে বার্সেলোনা ৮৩.৩ মিলিয়ন পাউন্ড দিয়েছে। কিন্তু বার্সেলোনা ও নেইমারের আর্থিক লাভের জন্য এই বিশাল অংকের অর্থের তথ্যটি তারা গোপন রাখে। ব্রাজিলের বিনিয়োগ কোম্পানি ‘ডিআইএস’ নেইমারের ট্রান্সফার সত্বের ৪০ শতাংশে মালিক ছিল। কিন্তু বিশাল অংকের অর্থ গোপন করায় তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে অভিযোগ। আর বিষয়টি নিয়ে তারা স্প্যানিশ আদালতে নেইমারের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা করেছে। এছাড়া মামলার তালিকায় আছেন নেইমারের বাবা ও বার্সেলোনার তখনকার প্রেসিডেন্ট ও ভাইস-প্রেসিডেন্ট সান্দ্রো রোসেল ও জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ। ব্রজিলের এই কোম্পানির মামলা গ্রহণ করে স্পেনের আদালত দিয়েছে নতুন তথ্য। তারা জানিয়েছে, ইউরোপের আরও কয়েকটি বড় বড় ক্লাব ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত নেইমারের জন্য কত টাকা পর্যন্ত দাম হাঁকানো হয়েছে তার তথ্য জানতে চেয়েছে। ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, জার্মানির ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ ও স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ এরমধ্যে অন্যতম।
নেইমারের দল বদলের আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগেই গত বছর জানুয়ারিতে প্রেসিডেন্টের পদ থেকে পদত্যাগ করেন সান্দ্রো রোসেল।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১:০৫ অপরাহ্ণ | জুন ১৮, ২০১৫