| সকাল ৭:২৬ - মঙ্গলবার - ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

কর ফাঁকির অভিযোগে জরিমানা ও জেলের শঙ্কায় মেসি

অন লাইন ডেস্ক, ১১ জুন ২০১৫, বৃহস্পতিবার:

ট্রেবল শিরোপা জয়ের খুশি ফিঁকে হতে বসেছে লিওনেল মেসির। কর ফাঁকির মামলা থেকে অব্যহতি চেয়ে মেসির আইনজীবী যে আবেদন করেছিলেন তা খারিজ করে দিয়েছেন স্পেনের আদালত। এখন বড় অংকের অর্থ জরিমানা ও জেলের শঙ্কায় রয়েছেন বার্সেলোনার স্ট্রাইকার মেসি ও তার বারা হোর্সে মেসি। তাদের বিরুদ্ধে ৪১ লাখ ইউরো কর ফাঁকির অভিযোগ। বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৩৬ কোটি টাকা।
লিওনেল মেসি ও তার বাবা হোর্হের বিপক্ষে গত বছর এই পরিমাণ অর্থ কর ফাঁকি দেয়ার অভিযোগ আনে স্পেন সরকার। তখনই অভিযোগ অস্বীকার করেন মেসি। এবং মামলা থেকে অব্যাহতি চেয়ে মেসির আইনজীবী আবেদনও করে। কিন্তু বুধবার স্পেনের আদালত তা নাকচ করে দিয়েছে। ২০০৭-০৯ সালের মধ্যে ব্রাজিল ও উরুয়ের কয়েকটি কোম্পানিকে মেসির ইমেজ ব্যবহার করার অনুমতি দিয়ে প্রচুর অর্থ আয় করেছেন হোর্হে। কিন্তু মেসি বা হোর্হে কেউই স্পেন সরকারকে সেই আয়ের কর দেননি এবং বিষয়টি তারা গোপন করেন।
তবে মেসি ও তার বাবা বরাবরই বলে আসছেন, তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মোটেও সত্য নয়। বরং নির্ধারিত সময়ে স্পেন সরকারকে নিয়মিতই কর দিয়ে আসছেন বলে তারা জানান। ফাঁকি দেয়ার মত যদি কিছু ঘটে তাহলে তা তাদের অজ্ঞাতে। তবে বার্সেলোনার আদালত বলেছে, মেসি ও তার বাবা এই বিষয়ে জ্ঞাত নাকি অজ্ঞাত ছিলেন তা অপ্রাসঙ্গিক। মূল কথা হচ্ছে, সরকারকে উল্লেখিত পরিমাণ কর ফাঁকি দেয়ার বিষয়টি সুস্পষ্টভাবেই প্রমাণিত। মেসির আইনজীবীরা দাবি করেছেন, মেসি নিজে এর সঙ্গে কোনোভাবে জড়িত নন। মেসি নিজেও বলেছেন, করের আইন কানুন তিনি বোঝেন না। এসব দেখভাল করার জন্য তার আইনজীবীরাই রয়েছেন। তিনি আইনজীবীদের পরামর্শ মেনে চলেছেন।
কিন্তু আর যাই হোক, মেসি ও তার বারা অপরাধী প্রমাণিত হলে হলে ২ কোটি ১০ লাখ ইউরো জরিমানাসহ জেল হতে পারে তাদের। বাংলাদেশী মুদ্রায় জরিমানার পরিমাণ প্রায় ১৮৫ কোটি টাকা।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:০৬ অপরাহ্ণ | জুন ১১, ২০১৫