| রাত ১১:১৮ - শুক্রবার - ৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

মুক্তাগাছা-মধুপুরে সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য খাজুলিয়া কমলাপুর রাবার বাগান, সাধারণ জনগণ জিম্মি

সিরাজুল হক সরকার, মুক্তাগাছা থেকে:

ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইল জেলার সীমান-বর্তী মুক্তাগাছা ও মধুপুর উপজেলার খাজুলিয়া ও কমলাপুর রাবার বাগান এলাকা হত্যা, ধর্ষণ, মাদক ব্যবসায়ী, ডলার প্রতারক ও সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য। এলাকার নিরীহ জনগণ সন্ত্রাসীদের কাছে জিম্মি। সন্ত্রাসীদের সামনে প্রতিবাদ করার কারও সাহস নেই। প্রতিবাদ করলেই তাদের জানমালের কোন নিরাপত্তা থাকে না। কোন প্রকার কারণ ছাড়াই তাদের সহায় সম্পত্তি জবর দখলসহ প্রাণনাশের চেষ্টা করা হয়। সূত্রমতে, দীর্ঘদিন যাবত ময়মনসিংহ জেলার শেষ প্রানে- টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর উপজেলার কমলাপুর রাবার বাগান সংলগ্ন খাজুলিয়া গ্রামে মৃত আঃ রহিমের পুত্র মুর্শেদের নেতৃত্বে গড়ে উঠেছে একটি শক্তিশালী সন্ত্রাসী সিন্ডিকেট। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে লেবু, আলু, কাঁঠাল, কলা এমনকি কুড়িয়ে পাওয়া ডলার সস-ায় বিক্রির কথা বলে বিত্তশালীদের প্রলোভন দেখিয়ে এনে মারধর করে হত্যার হুমকি দিয়ে টাকা-পয়সা লুট করে তাড়িয়ে দেয়। তাছাড়া উক্ত মুর্শেদ আন-ঃ জেলা মোটর সাইকেল ও সিএনজি চোর সিন্ডিকেটের গডফাদার। কিছুদিন পূর্বে গাজীপুর বোর্ডবাজার থেকে তার ছেলে আমিরুল অটোরিক্সা চুরি করে নিয়ে আসে। পরে গাজীপুর থেকে লোক এসে মুক্তি পণ দিয়ে অটোরিক্সা উদ্ধার করে নেয়। বছর খানেক পূর্বে এক ব্যক্তিকে ডলার দিবে বলে ডেকে এনে কয়েক লক্ষ টাকাসহ তার মোটর সাইকেল রেখে দেয়। পরে মোটর সাইকেল অন্যত্র বিক্রি করে দেয়। মুর্শেদ বাহিনীর অন্যান্য সদস্যের সিন্ডিকেটের মধ্যে দুধর্ষ সোহেল, সুরুজ, আনোয়ার, উজ্জ্বল, আমিরুল। তারা নারী ধর্ষণ, হত্যা, গুম, চুরি, ডাকাতি, মাদকসহ একাধিক মামলার আসামী এমন কোন কাজ নেই তারা করছে না। মুর্শেদ বাহিনীর অন্যতম সদস্য খোরশেদ ৫ম শ্রেণীর ছাত্র নিজ পুত্র সিরাজুল ইসলাম কে নিজেই পিটিয়ে হত্যা করে। গত ১৭ মে এলাকার মীর হোসেন ও আলী হোসেন কে হত্যার উদ্দেশ্যে তার নেতৃত্বে সকাল ১০টায় প্রকাশ্য দিবালকে হামলা চালিয়ে ১৪ জনকে গুরুতর আহত করে। আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। এ ব্যাপারে মুক্তাগাছা থানায় মামলা হয়। মামলা নং- ১৮, তারিখ- ১৮/০৫/২০১৫ ইং। এদিকে মামলা করার পর আলী হোসেন ও মীর হোসেন সহ তার পরিবার পরিজন কে প্রকাশ্যে হত্যা হুমকি দিচ্ছে। যে কোন সময় তাদের প্রাণনাশের আশংকা রয়েছে। পুলিশ মুর্শেদ, সোহেল, সুরুজ, মালেক, খুরশেদ কে গ্রেফতার করতে পারলে বেরিয়ে আসতে পারে তাদের অপরাধ জগতের লোম হর্ষক চিত্র। এ ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনের জরুরী হস-ক্ষেপ কামনা করেছে এলাকার নিরীহ জনগণ।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৩৯ অপরাহ্ণ | জুন ০৪, ২০১৫