| সন্ধ্যা ৬:১১ - মঙ্গলবার - ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

‘বাজেট কমছে, মানও পড়ছে’

 বিনোদন: ০৩ জুন, বুধবার,

ছোট পর্দার অন্যতম ব্যসৱ অভিনেত্রী দীপা খন্দকার টিভি নাটকে প্রযুক্তিগত সুবিধা বাড়লেও কমেছে নির্মাণ ব্যায়। বাজেট স্বল্পতার কারণে নাট্যশিল্পীদের ‘সঠিক বিকাশ’ তো হচ্ছেই না, নির্মাণেও ত্রম্নটি রয়ে যাচ্ছে।
আকরাম খান পরিচালিত ‘ঢাকা হাউসওয়াইফস’ ধারাবাহিক নাটকের সেটে কথা হচ্ছিল দীপার সঙ্গে। তিনি বলছিলেন, “এখন প্রযুক্তিগত উন্নয়ন হয়েছে, শুধু কমেছে বাজেটের পরিমাণ। অন্যান্য দেশগুলো থেকে আমাদের দেশের টিভি নাটক অনেক বেশি সমৃদ্ধি হওয়া সত্ত্বেও বাজেট স্বল্পতার কারণে নাট্যশিল্পটা ঠিক সেভাবে বিকশিত হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে না।”
কম বাজেটের কারণে অনেক নাটকই তাড়াহুড়ো করে নির্মাণ করা হয় বলে নাটকের মানও ঠিক থাকছে না বলে মনৱব্য করেন দীপা। তিনি মনে করেন, এ কারণে টিভি নাটক থেকে দর্শক ধীরে ধীরে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে।
আরও অভিযোগ করলেন, “অধিকাংশ প্রযোজকই চরিত্র বোঝেনা, চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য বোঝে না। ফলে দৃশ্যায়ন নাটকের গল্প অনুযায়ী ঠিকমতো হচ্ছে না।”
দীপা জানালেন, আগে এক ঘণ্টার নাটককে প্রাধান্য দিলেও এখন তিনি ধারাবাহিকের দিকেই ঝুঁকেছেন।
“বিজ্ঞাপনের প্রকোপে বিরক্ত দর্শক এক ঘণ্টার নাটক দেখেন না। কারণ চরিত্রের ব্যাপারে তাদের তেমন ধারণা বা আগ্রহ জন্মে না। আর ধারাবাহিক নাটক কিন’ মানুষ দেখবেই। কারণ, ধারাবাহিক নাটক দেখলে মানুষ একটা চরিত্রের ভেতর দীর্ঘ সময় নিয়ে ঢুকতে পারে। চরিত্র সম্পর্কে জানতে পারে।”
আরও বললেন বিজ্ঞাপনের মাত্রা সহনীয় পর্যায়ে রাখা উচিৎ।
“সত্যিটা হল নাটক আছে বলেই বিজ্ঞাপন আছে। তবে আমার মনে হয় এটাকে সহনীয় পর্যায়ে রাখা উচিত। বিজ্ঞাপনের ফাঁকে নাটক নয়, নাটকের ফাঁকে বিজ্ঞাপন। সংশিস্নষ্ট কর্তৃপৰ নিশ্চয়ই বিজ্ঞাপন আর নাটক প্রচারের ৰেত্রে আরও ভাববেন।”
১৭ বছরের অভিজ্ঞতায় ঋদ্ধ এই অভিনেত্রী জানালেন, অভিনয়ের ৰেত্রে গল্প ও চরিত্রের ব্যাপারে ভীষণ খুঁতখুঁতে তিনি।
নাটকের গল্প আর চরিত্রের প্রতি আমি খুব মনযোগী। যে কাজটি আমি করতে পারবো, যে চরিত্রের জন্য নিজেকে যোগ্য মনে করব, সে কাজটি আমি কেবল করব। আমি কোনো ধরনের চরিত্রে অভিনয় করবো, তা নির্ভর করে বয়সের উপর। বর্তমান বয়স বিবেচনা করে আমি এখন নেগেটিভ চরিত্রে কাজ করতে চাই।এফএনএস

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৫১ অপরাহ্ণ | জুন ০৩, ২০১৫